Skip to content Skip to footer

কর্মক্ষেত্রে স্বচ্ছতা বজায় রাখবেন যেভাবে

আপনি উদ্যোক্তা হোন বা কর্মজীবী, কর্মী বা সহকর্মীদের সাথে ভালো সম্পর্ক তৈরির অসাধারণ একটি উপায় হচ্ছে স্বচ্ছতা বজায় রাখা। আপনি কী বলছেন, কী চাচ্ছেন তা যেন অন্যেরা সবসময় বুঝতে পারে। কর্মক্ষেত্রে স্বচ্ছতা তৈরি করতে ও ধরে রাখতে এই উপায়গুলি দেখে নিতে পারেন।

১. স্পষ্টভাবে কথা বলুন

অন্য কর্মীদের সাথে স্পষ্টভাবে কথা বলার মাধ্যমে আপনি নিজের অনুভূতি ও চিন্তাভাবনা পরিষ্কারভাবে ব্যাখ্যা করতে পারবেন। এক্ষেত্রে সত্যিটা বলা সবচেয়ে সহজ। এমনভাবে নিজের আবেগ প্রকাশ করুন ও ব্যাখ্যা করুন যাতে অন্যরা বুঝতে পারে। কর্মক্ষেত্রে সততা অনেক কাজে দেয়। কোনো ক্ষেত্রে সাহায্য লাগলে আপনার কর্মী বা সহকর্মীরা নিজে থেকেই আপনাকে সাহায্য করতে চাইবে।

উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের প্রতিষ্ঠানেও যদি এই কালচার তৈরি করতে পারেন, তাহলে ব্যবসায় উন্নয়ন আরো সহজ হবে।

২. প্রয়োজনীয় তথ্য দিন

প্রয়োজনীয় তথ্য দেয়া অনেকটা নিজের চাহিদার বিষয়ে সৎ থাকার মতোই। প্রয়োজনীয় তথ্য দেয়ার অর্থ হচ্ছে কারো সাথে কথা বলার সময় কোনো তথ্য গোপন না করা। এর মাধ্যমে কর্মীদের কাছে আপনার প্রত্যাশা কী সেটাও পরিষ্কারভাবে বুঝিয়ে বলা যায়। কর্মীদের সাথে সহজেই বিভিন্ন তথ্য শেয়ার করার জন্য নির্দিষ্ট সময়ে মিটিং করতে পারেন কিংবা ব্যক্তিগতভাবে কথা বলে নিতে পারেন।

৩. প্রশ্ন করুন

প্রশ্ন করার মাধ্যমে নম্রতা ও স্বচ্ছতা প্রকাশিত হয়। এর মাধ্যমে নতুন কিছু শেখার ও নিজের আরও উন্নতি করার চাহিদা প্রকাশ পায়। প্রশ্ন করার মাধ্যমে অন্যেরা কী বুঝতে পারছে না তা বুঝিয়ে বলতে পারে। ফলে এমন একটি পরিবেশ তৈরি হয় যেখানে মানুষ নিজের জ্ঞান অন্যের সাথে শেয়ার করতে পারে। কর্মীদের আরো ট্রেনিং লাগবে কিনা কিংবা কারো জ্ঞান বা ধারণায় ঘাটতি আছে কিনা তাও স্বচ্ছভাবে প্রশ্ন করার মাধ্যমেই পরিষ্কার হয়।

৪. ফিডব্যাক বা মতামত দিন

স্বচ্ছতা বজায় রাখার আরেকটি সহজ ও বাস্তবসম্মত উপায় হচ্ছে ফিডব্যাক বা মতামত দেয়া। ফিডব্যাক দেয়ার অর্থ হচ্ছে কাউকে তার কাজের ওপর ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিকগুলি বুঝিয়ে বলা। আপনি যদি স্বচ্ছতা বজায় রাখেন, তাহলে সবাই আপনার দেয়া ফিডব্যাক গুরুত্বের সাথে গ্রহণ করবে। কর্মীদের কোন বিষয়গুলিতে আরো ভালো করতে হবে সেটা জানাতে ও তার কাজের স্বীকৃতি দিতে ফিডব্যাক অনেক দরকারি।

৫. প্রফেশনাল থাকুন

প্রফেশনালিজম বা পেশাদারিত্ব স্বচ্ছতারই একটি অংশ। স্বচ্ছতা বলতে যদিও সঠিক ও সত্য তথ্য দেয়া বোঝায়, কিন্তু তার মানে এই না যে সব বিষয়ে, বিশেষ করে নিজের ব্যক্তিগত বিষয়ে, সব কথা বলতে হবে। পাশাপাশি অন্যান্য কর্মী বা সহকর্মীদের গোপনীয়তাকে শ্রদ্ধা করতে হবে।

৬. বাস্তববাদী হোন

কর্মক্ষেত্রে স্বচ্ছ থাকার আরেকটি দারুণ উপায় হচ্ছে বাস্তববাদী হওয়া। বাস্তবসম্মতভাবে বিজনেসকে বিশ্লেষণ করতে গেলে আপনি এর ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিকগুলি বুঝতে পারবেন। আপনার বিজনেস কতটা ভালো করছে ও আরো ভালো করার জন্য কী করতে হবে তা নির্ধারণ করা ও কর্মী বা সহকর্মীদের সাথে তা শেয়ার করা স্বচ্ছতার মধ্যেই পড়ে। অন্যান্য কর্মীদের সাথে কথা বলার সময়, বাস্তবসম্মত লক্ষ্য নির্ধারণ করুন। বাস্তববাদী হলে, নিজের কোম্পানির সামর্থ্য সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা থাকবে ও নিজের চিন্তাভাবনা সরাসরি কর্মীদের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

৭. বিজনেসের পারফরমেন্স শেয়ার করুন

ম্যানেজার বা কোনো নেতৃস্থানীয় পদে থাকলে, বিজনেসের পারফরমেন্স অন্য কর্মীদের সাথে শেয়ার করুন। শেয়ার করার সময় কোম্পানি কেমন করছে তার পরিসংখ্যান ও বিশ্লেষণ দেখাবেন, তা যত ভালো বা খারাপ হোক।

এই কাজটি কিছুটা চ্যালেঞ্জিং হতে পারে, কারণ পারফরমেন্স নেতিবাচকও হতে পারে, কিন্তু এধরনের তথ্য কর্মীদের সাথে শেয়ার করা দরকারি। আপনার স্বচ্ছতা ও এই তথ্য অন্যদের সাথে শেয়ার করার ইচ্ছা অন্যান্য কর্মীদের কোম্পানির বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা দেবে।

Leave a comment